Google সম্পর্কে অজানা তথ্য; বিলিয়ন ডলার technology কোম্পানি google

Google সম্পর্কে অজানা তথ্য; বিলিয়ন ডলার technology কোম্পানি google

হাজার 1996 সালে ক্যালিফোর্নিয়ার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের দুজন পিএইচডি ছাত্র একটি গবেষণা প্রকল্প শুরু করেন। সেই ছাত্র দুজন হলেন ল্যারি পেইজ ও সার্গেই ব্রিন। তাদের সেই গবেষণা প্রকল্প থেকে জন্ম নিয়েছে আজকের প্রযুক্তি দানব প্রতিষ্ঠান গুগল ।

what is google

Google হল বর্তমান বিশ্বের এক নম্বর সার্চ ইঞ্জিন। সবচেয়ে জনপ্রিয় এই ওয়েবসাইট সার্চ ইঞ্জিন বাজারের 70% দখল করে আছে। শুধু তাই নয় গুগলের অভিভাবক সংস্থা অ্যালফাবেট এর অধীনে প্রায় 200 টিরও বেশি কোম্পানি এবং গুগলের নামে প্রায় 271 টি পণ্য বাজারে রয়েছে।

কেউ কখনো কল্পনাও করেনি সেই পিএইচডি গবেষণার প্রকল্প একদিন আজকের গুগোল এ পরিণত হবে। গুগলের প্রতিষ্ঠাতা প্রথমেই প্রতিষ্ঠান নাম দিয়েছিলেন backrub. Backrub হলো এমন একটি পদ্ধতি যার সাহায্যে একটি ওয়েবসাইট আর একটি ওয়েবসাইটকে খুঁজে বের করে। এবং সেগুলোর অতিথি লিংকের উপর নির্ভর করে,ওয়েবপেইজ র‌্যাংকিং নির্ধারণ করে।

Google বিক্রি করার চেষ্টা

1999 সালে ল্যারী এবং সের্গেই গুগলকে 1 মিলিয়ন ডলারে বিক্রি করার চেষ্টা করেছিলেন। কারণ কম্পানির পেছনে সময় দেওয়ার জন্য তাদের লেখা পড়ার ক্ষতি হচ্ছিল। কিন্তু তখনকার দিনে গুগোল কেনার মত কোন গ্রাহক ছিল না। এমনকি দাম কমিয়ে দেয়ার পর কোন গ্রাহক মেলেনি। অথচ মাত্র 22 বছরের ব্যবধানে সেই গুগলের মোট সম্পদের পরিমাণ 934 বিলিয়ন ডলার।

আর গুগলের প্রতিষ্ঠাতা ল্যারি পেইজ বিশ্বের অষ্টম এবং সের্গেই ব্রিন বিশ্বের নবম শীর্ষ ধনী। গুগোল কেনার সেই সুযোগ সবচেয়ে সহজে হাতছাড়া করেছিল excite নামের একটি প্রতিষ্ঠান। এরা সংবাদ আবহাওয়া বার্তা এবং সার্চ ইঞ্জিন সেবা প্রদান করত। এক্সাইটেড বিনিয়োগকারী বিনোদ আর সাথে সাড়ে সাত লাখ ডলারে গুগল বিক্রির ব্যাপারে আলোচনা হয়েছিল।

তখনো গুগোল বিক্রি হয়নি এরপর একই রকম সুযোগ হারায় ফাদার অফ সার্চ হিসেবে খ্যাত লিউমোনিয়া তিনিও তার প্রতিষ্ঠাতা আল্টাভিস্টা হলো সর্বপ্রথম ভোক্তা শ্রেণীর ব্যবহার উপযোগী সার্চ ইঞ্জিন। ইন্টারনেটের প্রথমদিকে আল্টাভিস্টা ছিল বহুল ব্যবহৃত এবং নির্ভরযোগ্য একটি সার্চ ইঞ্জিন।

গুগল কিনতে না পারার জন্য লিউমোনিয়া এর কোনো আফসোস নেই কারণ তিনি আল্টাভিস্টা শুরু করেছিলেন অলাভজনক প্রতিষ্ঠান হিসেবে। যদিও পরবর্তীতে আল্টাভিস্টা ইয়াহুর কাছে বিক্রি হয়ে গিয়েছিল। মজার ব্যাপার হল ইয়াহু তখন আল্টাভিস্টা কি না নিলেও গুগলকে কিনতে যায়নি।

Yahoo এর কাছে Google বিক্রি করার চেষ্টা

1998 সালে সের্গেই  yahoo এর কাছে অনুরোধ করলেও তারা গুগোল কিনতে অস্বীকৃতি জানায়। সেই সিদ্ধান্তের কারণে ইয়াহু এখন আফসোস করে। 2007 সালে গুগল সার্চ ইঞ্জিন ব্যবসায়ী ইয়াহুকে পেছনে ফেলে এক পর্যায়ে ইয়াহু একটি ব্যর্থ কোম্পানিতে পরিণত হয়।

বেশ কয়েকবার কোম্পানিকে সচল করার চেষ্টা করলেও ইয়াহু তার আবেদন হারিয়ে ফেলেছে। তাই ইয়াহুর মূল সেবাগুলো আমেরিকার টেলিকমিউনিকেশন্স জায়ান্ট ভেরাইজনের কাছে বিক্রি করে দেয়া হয়েছে।

এই সিজনে আমেরিকার ফাইভ-জি প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করা শীর্ষ কোম্পানি ফাইভ-জি নেটওয়ার্ক এর উপর ভিত্তি করেই ভবিষ্যতের তারহীন ইন্টারনেট বিশ্ব গড়ে উঠবে। ফাইভ-জি নেটওয়ার্ক প্রচলিত ফোরজি নেটওয়ার্ক এর তুলনায় প্রায় 100 গুণ দ্রুত গতিসম্পন্ন। রেসপন্স টাইম হবে মানুষের চোখের পলক পড়ার চেয়ে ও দ্রুত।

Fatema Akter

Fatema Akter

আসসালামু আলাইকুম, আমি ফাতেমা আক্তার, আমি বর্তমানে University তে লেখাপড়া করি, পাশাপাশি আমি tw3press এ লিখি, আমি নিজে যা জানি তা সবাইকে জানাতে বা শিখাতে ভালবাসি

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।