বসকে তেল মারার সেরা ১০ উপায় I 10 Ways to Impress Your Boss

বসকে তেল মারার সেরা ১০ উপায় I 10 Ways to Impress Your Boss

যারা চাকরি করেন কিংবা ভবিষ্যতে চাকরি করবেন। চাকরি মূলত সবাইকেই করতে হয়। নারী-পুরুষ অনেকের চাকরি করে। তো যারা চাকরিজীবী কিংবা ভবিষ্যতে চাকরি করবেন, হোক সেটা প্রাইভেট বা সরকারি। আজকের এই এপিসোডে আপনাদের সবার জন্য উপযুক্ত। যে কিভাবে আপনি আপনার বসকে তেল দিবেন।

তেল শিল্প একটি বৃহৎ শিল্প। এই শিল্পের কাছে সকল শিল্প কিন্তু হার মেনে যায়। একটি কথা আছে যে যত দিতে পারে তেল। তার তত বাড়ে বেল। তেলবাজিতে ওস্তাদ যারা আকাশে উড়াল দেয় তারা। অর্থাৎ আপনি যত তেলবাজি করবেন, তত আপনি আপনার বসের বসের বা উপর লেভেলে যে সমস্ত বস আছে তাদের কাছে প্রিয় পাত্র হতে পারবেন।

বসকে তেল মারার সেরা ১০ উপায়:

তো আজকের আমি 10 টি উপায় জানাবো, যে কিভাবে আপনি আপনার বসকে বা উপর লেভেলের কোনো কর্মকর্তাকে আপনি তেল দিবেন।

  • যদি আপনি পুলিশের চাকরি করেন ওসিকে কিভাবে তেল দেবেন।
  • যদি আপনি অন্য কোন সেক্টরে চাকরি করেন, আপনি আপনার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে কিভাবে তেল দেবেন।
  • যদি প্রাইভেট চাকরি করেন বা কর্পোরেট লেভেলের চাকরি করেন তাহলে আপনি কিভাবে আপনার বসকে তেল দিবেন।

সেই সম্পর্কে আলোচনা করবঃ

 ১.  সব কথায় বসের পক্ষে থাকবেন।

আপনি কোন কিছু বুঝন আর না বুঝুন সব ক্ষেত্রে হ্যা বতে হবে। যদি বলে ঢাকা বামদিকে আপনি বলবেন যে হ্যা স্যার ঢাকা বামদিকে। আপনার বস যদি বলে যে মোটরসাইকেল রাস্তায় চলে আপনি বলেন জি স্যার মোটরসাইকেল রাস্তায় চলে। আপনার বস যেটাই বলবে আপনি হ্যা বলবেন। এটা কিন্তু তেলবাজির একটা প্লাস পয়েন্ট, মানে সব ক্ষেত্রে বস আপনার উপরে অনেক খুশি থাকবে।

২. সবসময় হাসিখুশি থাকা।

আপনার সামনে বস যখন কোন জোকস বলবে মজার একটা কথা বলল। বা কোন জোকস বলল, জোকস আপনার পছন্দ হয়নি মানে কোন হাসি নেই। তারপরও আপনি বত্রিশ পাটি দাঁত বের করে খিলখিল করে হাসবেন। এত সুন্দর জোকস আমি কখনো শুনিনি। আপনার মুখ থেকে শুনলাম।

অর্থাৎ বস জোকস বলার সঙ্গে সঙ্গে আপনি হাসি শুরু করবেন। তাহলে বস মনে করবে আমার জোকসটা অনেক সুন্দর হয়েছে।

 ৩. সবসময় বসের আসেপাশে থাকুন।

আপনি সবসময় বসের পিছনে লেগেই থাকবেন। বস যদি বাথরুমে যায়, আপনিও হিসু করার নাম করে চলে যাবেন। মানে বাথরুমে কাছে দাঁড়িয়ে থাকবেন। তাহলে বস বলবে যে এটাই আমার সবচাইতে সিনসিয়ার একজন কর্মচারী বা কর্মকর্তা। আপনার উপরে বসের একটা আশীর্বাদ চলে আসবে। যদি আপনি এভাবে মানে সবসময় বস এর পিছনে লেগে থাকেন।

৪. কথায় কথায় বসকে প্রশংসা করবেন।

বস যে কালার এর জামা পড়ে আসুক না কেন, সে যদি একটা লাল জামা পড়ে আসে। তারপরও বলবেন দারুন মানিয়েছে। অর্থাৎ বসের প্রত্যেকটা কাজে আপনি প্রশংসা করবেন।

বসের বউকে প্রশংসা করবেন, যে বস আপনার কপালটা অনেক ভালো যে আপনি ভাবির মত সহজ সরল পর্দাশীল পর একজন মেয়েকে আপনি পেয়েছেন।

মানে বসের শালা, শালী সমন্দি, খালা-খালু, শ্বশুর, শাশুড়ি সব নিয়ে আপনি তেল দেবেন। বস সবাই ভাল, এত ভালো ফ্যামিলিতে বিয়ে করলেন কিভাবে বস। আপনার কপালটাতো অনেক ভালো। বসের প্রত্যেকটা কর্মকাণ্ডে তার ফ্যামিলি, শশুর বাড়ি, ফ্যামিলি সবকিছুতে আপনি প্রশংসা করবেন।

আর প্রশংসায় কিন্তু একটা মানুষকে খুব সহজে ইমপ্রেস করা যায়। আর যখনই আপনি এইভাবে প্রশংসা করবেন। বস কিন্তু সর্বদাই আপনার উপরে খুশি থাকবে। এবং আপনার প্রমোশন সহজে হবে।

৫. প্রশংসার যোগ্য না হলেও প্রশংসা করবেন।

আপনার বস যতই খ্যাত হোক না কেন তারপরও আপনি আপনার বসকে প্রশংসা করবেন। যে বস আপনি তো আল্ট্রা জিনিয়াস। মানে আপনি তো ফ্যাশন জগতের রাজা। যে কাপড় বা সুট পড়ে আসুক না কেন, আপনি তার সুন্দর প্রশংসা করবেন। তাহলে দেখবেন যে বস আপনার উপরে অনেক খুশি থাকবে।

৬. যে কোন অকেশন উপলক্ষে আপনি বস্তে গিফট করবেন

  • বসের জন্মদিন আপনি গিফট করলেন
  • বসের বিবাহ বার্ষিকীতে গিফট করলেন
  • থার্টি ফার্স্ট নাইট, পহেলা বৈশাখ ও অকেশনালি মুহূর্তে আপনি আপনার বসকে ছোট ছোট কিছু গিফট করলেন।

যে বস এটা আপনার জন্য। এবং আপনি এটা করতে পারেন যে আপনি বাজার থেকে একটি মাছ, বড় দেখে একটা মাছ কিনলেন। কিনে বললেন যে বস আমি আমাদের গ্রামে গিয়েছিলাম তো গ্রামের পুকুর থেকে আমি নিজ হাতে আপনার জন্য এই মাছটা নিয়ে এসেছি।

বস আপনি যদি না খান আমি খুব কষ্ট পাব। বস দেখবেন যে খুশিতে গদগদ হয়ে যাবে। এবং আপনার প্রমোশনের লেটার টাইপ করতে শুরু করে দেবে। তো এভাবে আপনি বসের মনটাকে অধিকাংশ জয় করে ফেলতে পারবেন বসকে তেল দিয়ে।

৭. অফিসে বা কর্ম ক্ষেত্রে যদি বসের নামে কেউ কিছু বলে, আপনি টুক করে এসে বসের কানে বলে দেবেন।

যে বস আমাকে একজন এই কথা বললো। এভাবে আপনি বসের সবসময় প্রিয় পাত্র হতে পারবেন।

৮. বসকে আইডল মানুন।

সবসময় বলবেন যে বস আপনি হচ্ছে আমার আইডল। যে যাই ভাবুক না কেন। আমার আইডল হচ্ছে আপনি,

  • আপনার আদর্শ হচ্ছে আমার আদর্শ।
  • আপনার স্টাইল হচ্ছে আমার স্টাইল।
  • আপনার কথাগুলো যে আমার কাছে চিরন্তন কালের মতো সত্য।
  • আপনার প্রত্যেকটা উপদেশ আমার কাছে চিরন্তন সত্য বাণী।

এভাবে বসকে বলবেন, আপনি আমার জীবনের আইডল। এভাবে তেল মারবেন বসকে। তবে দেখবেন যে বস অনেকটা খুশি হয়ে যাবে আপনার ওপরে।

৯. আপনি  কাজের প্রতি দায়িত্বশীল তা আপনার বসের সামনে প্রকাশ করবেন।

ধরেন অফিসে আপনি কাজ খুব ধীরে করেন। যখন বস আসবে তখন এত কাজের চাপ দেখাবেন। যে বস এই অফিসের অর্ধেক কাজ তে আমি করে ফেলি। তাহলে বস দেখবে যে এইরকম শ্রেণীর কর্মচারী আমার অফিসে থাকে। মানে এটা ভাবতেই বড় অবাক লাগবে। এটা যে আপনি বসকে দেখাচ্ছেন এটা যেন আবার বস বুঝতে না পারে। এভাবে বসকে তেল দিয়ে থাকবেন।

10. আর ১০ নাম্বারে যে কথাটা বলব,

যে বসকে তেল দেয়ার যতগুলা পয়েন্ট বললাম এগুলি তখনই করবেন যখন আপনার কাজ করার যোগ্যতা থাকবে না।

অর্থাৎ যে পজিসনের যোগ্য না তখন আপনি বস কে তেল দিবেন। আর যদি আপনার যোগ্যতা থাকে তাহলে বস নিজেই কিন্তু বিবেচনা করে নিতে পারবে। যে আপনার যোগ্যতা অনুসারে।

আর 1 থেকে 9 পর্যন্ত যে পয়েন্টগুলো বললাম আপনি বসকে সুন্দর মত তেল দিতে পারবেন।

অর্থাৎ পৃথিবীতে সব সময় তেলবাজ রাই কিন্তু জয়লাভ করে, এটা মনে রাখবেন। আর বাংলাদেশে কিন্তু তেলের খনি এখানে প্রত্যেকটা জেলায় ঘরে ঘরে এখন তেলবাজ। সুতরাং আপনি তেলবাজ হতে অসুবিধা কি। তো আর দেরি না করে আগামীকাল থেকে তেল দিয়ে শুরু করে দিন ভালো থাকবেন ধন্যবাদ সবাইকে।

admin

admin

My name is Md Masudur Rahman. I’m a believer, I’m a dreamer and I’m a doer. I am well known in content creation, Presentation & Leadership skill. I can speak very well both in Bengali and English.

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।